1. admin@chunarughat24.com : admin :
আন্দোলনের ফলে চা শ্রমিকদের মজুরি বাড়লো ১৮ টাকা
বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০১:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ইসরায়েলের পার্লামেন্টারি কমিটির নির্বাচনে নেতানিয়াহুর পরাজয় বিশ্বের সোয়া ১৪ কোটি মানুষ করোনায় আক্রান্ত মিগুয়েল দিয়াজ ক্যানেল কিউবায় নতুন নেতা হিসেবে নির্বাচিত হলেন ফোর্বস ম্যাগাজিনে জায়গা পেলো বাংলাদেশী ৯ তরুণ ‘চিকিৎসক ও পুলিশের পাল্টাপাল্টি বিবৃতি কাম্য নয়’ ধান ৮০ শতাংশ পাকলেই কাটার তাগিদ দিয়েছে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসন সারাদেশের অধঃস্তন আদালতে ১০৬৮১ আসামীর জামিন চিকিৎসকের শব্দ অরুচিকর, ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানালো পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশন চট্টগ্রামে বিদ্যুৎকেন্দ্রে সংঘর্ষে শ্রমিক নিহতের ঘটনায় মামলা, তদন্ত কমিটি গঠন ‘কঠোর লকডাউন’ আরো এক সপ্তাহ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত

আন্দোলনের ফলে চা শ্রমিকদের মজুরি বাড়লো ১৮ টাকা

মোঃ খাজা নিজাম উদ্দিন
  • সময় : শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ২১৮ বার পঠিত

মোঃ খাজা নিজাম উদ্দিন।। আন্দোলনের মুখে চা শ্রমিকদের দৈনিক মজুরি ১৮ টাকা বৃদ্ধি করা হয়েছে। তাদের মজুরি ১০২ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এই চুক্তি কার্যকরের ফলে ২০১৯ সালের ১ জানুয়ারি থেকে এখন পর্যন্ত সকল বর্ধিত মজুরি পাবেন চা শ্রমিকরা। চা শ্রমিকদের বকেয়া মজুরি হিসেবে আপাতত ৩ হাজার টাকা করে দেয়া হবে বলেও জানা গেছে। বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মাখন লাল কর্মকার এই তথ্য জানান।

গতকাল ১৫ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় শ্রীমঙ্গলস্থ প্রফিডেন্ট ফান্ড অফিসে মজুরি বৃদ্ধির বিষয়ে চা শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ ও চা বাগান মালিকপক্ষের সংগঠন ‘বাংলাদেশি চা সংসদ’র মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। টানা ১১ ঘণ্টার বৈঠকের পর মজুরি বাড়ানোর এই সিদ্ধান্তে আসা হয়।

ওই বৈঠক থেকে আরো জানা যায়, দুর্গাপূজার আগেই চা শ্রমিকদের দাবি মেনে নিয়ে নতুন মজুরি প্রদানের দাবি জানান নেতৃবৃন্দ। আর চা সংসদীয় নেতৃবৃন্দ বর্তমান চায়ের বাজারের অবস্থা তুলে ধরে তার ওপর ভিত্তি করে নতুন মজুরির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান।

বৈঠকে বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কার্যকরি কমিটির সভাপতি মাখন লাল কর্মকার, সহ-সভাপতি পঙ্কজ কুন্ড ও বালিশিরা ভ্যালি কার্যকরী কমিটির সভাপতি বিজয় হাজরাসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। তবে বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেননি চা শ্রমিক ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাম ভোজন কৈরি। তবে বাংলাদেশি চা সংসদের পক্ষে তাহসিন আহমদ চৌধুরীর নেতৃত্বে কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন।

রাম ভোজন কৈরি জানান, এখন চা শ্রমিকরা দৈনিক মজুরি ১০২ টাকার বদলে ১২০ টাকা পাবেন। আর ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে নতুন এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। এখন বকেয়া হিসেবে মজুরির সঙ্গে আপাতত অতিরিক্ত ৩ হাজার টাকা করে পাবেন শ্রমিকরা। গতকাল বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে একটি প্রাথমিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। আর পূর্ণাঙ্গ চুক্তি স্বাক্ষরিত হলে শ্রমিকরা বর্ধিত উৎসব বোনাস পাবেন বলেও জানান চা শ্রমিক ইউনিয়নের এই কেন্দ্রীয় নেতা।

তবে এই সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন চা শ্রমিক সন্তানদের সংগঠন জাগরণ যুব ফোরাম সভাপতি মোহন রবিদাস। তিনি বলেন, শ্রমিকরা দৈনিক মজুরি দাবি করেছে ৩০০ টাকা। আর মালিক পক্ষ দিচ্ছে ১২০ টাকা করে। এই সিদ্ধান্ত অমানবিক। চা শ্রমিকদের নিয়ে নতুন করে আন্দোলনের চিন্তা ভাবনা চলছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর থেকে থেকে দেশের সব চা বাগানে মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে প্রতিদিন ২ ঘণ্টা করে কর্মবিরতি পালন করছে শ্রমিকরা। এমতাবস্থায় পুরো না হলেও কিছুটা দাবি মেনে নিয়েছে চা বাগানের মালিকরা। বর্তমান বাজার ব্যবস্থা অপ্রতুল হওয়ার কারণে ক্ষোভ প্রকাশ করেন অনেক চা শ্রমিক।

Facebook Comments
এ জাতীয় আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

স্বত্ব সংরক্ষিত © 2020 চুনারুঘাট
কারিগরি Chunarughat
Don`t copy text!