1. admin@chunarughat24.com : admin :
আহাম্মদাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আগাম হাওয়া বইছে
বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০২:২২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ইসরায়েলের পার্লামেন্টারি কমিটির নির্বাচনে নেতানিয়াহুর পরাজয় বিশ্বের সোয়া ১৪ কোটি মানুষ করোনায় আক্রান্ত মিগুয়েল দিয়াজ ক্যানেল কিউবায় নতুন নেতা হিসেবে নির্বাচিত হলেন ফোর্বস ম্যাগাজিনে জায়গা পেলো বাংলাদেশী ৯ তরুণ ‘চিকিৎসক ও পুলিশের পাল্টাপাল্টি বিবৃতি কাম্য নয়’ ধান ৮০ শতাংশ পাকলেই কাটার তাগিদ দিয়েছে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসন সারাদেশের অধঃস্তন আদালতে ১০৬৮১ আসামীর জামিন চিকিৎসকের শব্দ অরুচিকর, ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানালো পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশন চট্টগ্রামে বিদ্যুৎকেন্দ্রে সংঘর্ষে শ্রমিক নিহতের ঘটনায় মামলা, তদন্ত কমিটি গঠন ‘কঠোর লকডাউন’ আরো এক সপ্তাহ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত

আহাম্মদাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আগাম হাওয়া বইছে

হাবিবুর রহমান মাসুক
  • সময় : সোমবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩২৩ বার পঠিত
আহাম্মদাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আগাম হাওয়া বইছে

হাবিবুর রহমান মাসুক।। শীতের হাওয়ার সাথে বইতে শুরু করেছে নির্বাচনী হাওয়া। খুব শীঘ্রই আসছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। তাই জমে উঠেছে চুনারুঘাট উপজেলার তৃণমূলের রাজনীতি। নির্বাচনী হাওয়া লেগেছে ২ নং আহম্মদাবাদ ইউনিয়নে। উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ এই ইউনিয়নের অনেক প্রার্থী শুরু করেছেন আগাম প্রচারণা। কেউ কেউ চায়ের দোকানে নিয়মিত আড্ডার মাধ্যমে চালিয়ে যাচ্ছেন নিজের প্রচারণা।

আগামী বছর ২০২১ সালের মার্চ মাসে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্ভাব্য প্রার্থীগণ ভোটারের কাছে আসা-যাওয়া শুরু করেছেন। ভোটারের মন কি ভাবে জয় করা যায় সেই চেষ্টা করে যাচ্ছেন প্রার্থীগন। পক্ষান্তরে জনগন আশা করেন এমন এক জন প্রার্থী যেন নির্বাচিত হয়ে আসেন যিনি জনগনের সাথে সবসময় থাকবেন, মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবেন, মাদক নির্মূলসহ বিভিন্ন অপরাধ দমন করবেন।হিসেব নিকাশ করছেন ভোটারেরা। নতুন ভোটারদের মধ্যেও বিরাজ করছে প্রথম ভোট দেওয়ার আকাংখা।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে দেশের বড় দুইটি দল। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের দাবীদার সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে এখন পর্যন্ত যারা আলোচনায় আছেন তাঁদের মধ্যে  – সাবেক চেয়ারম্যান ও চুনারুঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব আঃ লতিফ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ আলাউদ্দিন স্যার, উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারন সম্পাদক কে এম আনোয়ার হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ সভাপতি দুলাল মেম্বার, উপজেলা তাঁতীলীগের সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান বাবুলের নাম শোনা যাচ্ছে।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র ধানের শীষ প্রতীক পেতে আগ্রহীদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ইউনিয়ন বি এন পি’ র সভাপতি সালেহ উদ্দীন বাবরুর নামই শোনা যাচ্ছে।

নিজের প্রার্থিতা নিয়ে অধ্যক্ষ মোঃ আলাউদ্দিন বলেন, ‘ইউনিয়নবাসী চেয়েছেন বলে আমি আগ্রহ প্রকাশ করেছি। শিক্ষকতার পাশাপাশি আ ওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকায় সকল স্তরের মানুষের কাছাকাছি থাকতে পেরেছি এবং মানুষের জন্য যথাসম্ভব কাজ করে যাচ্ছি। এমতাবস্থায় শুভাকাঙ্ক্ষীরা চাইছেন আমি যেন মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে আরো বেশী কাজ করতে পারি। তাই, আমিও নৌকা প্রতীক চাইবো।’ তবে দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে তিনি প্রার্থী হবেন না বলে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দল যাকে মনোনয়ন দিবে, তাঁর পক্ষে যেন আমরা সকলে কাজ করি, সকলের নিকট আমি এমনটা প্রত্যাশা করবো।’

এদিকে, তরুণ ও যুবমহলে ব্যাপক জনপ্রিয় উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কে এম আনোয়ার হোসেন নৌকা প্রতীক পাওয়ার ব্যাপারে অনেকটাই আশাবাদী। উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কে এম আনোয়ার হোসেন আওয়ামী পরিবারের দুর্দিনের একজন পরীক্ষিত সহযাত্রী। রাজনৈতিক জীবনে বহু হামলা মামলা নির্যাতনের শিকার এই যুবনেতা বলেন, ‘সাধারণ মানুষের চাওয়া- পাওয়ার বাইরে ব্যক্তিজীবনে কিছু পাওয়ার জন্য রাজনীতি করি না। দলের নীতি নির্ধারণী পরিষদ আমার ব্যাপারে যা জানেন তার উপর ভিত্তি করে আমাকে যোগ্য মনে করলে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিবেন বলে বিশ্বাস করি।’ তবে দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে কিছু করবেন না বলে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ মানুষের সেবা করা আমার ব্রত। দলীয় মনোনয়নে প্রার্থী বা চেয়ারম্যান হতে না পারলেও সারাজীবন যাতে মানুষের পাশে থাকতে পারি সৃষ্টিকর্তা আমাকে সেই তৌফিক দান করুন।’ সবশেষে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী কাজ করবেন বলে তিনিও জানান।

উল্লেখ্য, আহম্মদাবাদ ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান আবেদ হাসনাত চৌধুরী এবার নির্বাচনে প্রার্থী হবেন না বলে আগেই ঘোষণা দিয়েছিলেন। এখন পর্যন্ত তিনি এমন সিদ্ধান্তে অটল বলেই জানা যায়।

এছাড়াও আরো যাঁদের নাম শোনা যাচ্ছে তাঁদের মধ্যে সমাজ সেবক শামছুল আলম ফুল মিয়া, তরুণ সমাজসেবক জাকির হোসেন পলাশ, ডুবাই আজমান প্রদেশের সাধারন সম্পাদক হারুনুর রশিদ রঙ্গু, প্রবাসী তুুফাজ্জল মহালদার, প্রবাসী ও সাবেক মেম্বার লিটল জমাদার, সমাজ সেবক যুবরাজ ঝড়া, সমাজ সেবক গোপি তাতী অন্যতম।

অন্যদিকে এখন পর্যন্ত ধানের শীষ প্রতিকের একমাত্র দাবীদার হলেও দলীয় আদেশ ও শৃঙ্খলা মেনে চলবেন বলে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী সালাউদ্দিন বাবরুও জানান।

এবারের নির্বাচনে অনেক নতুন ভোটার তাঁদের প্রথম ভোট দিবেন বলে তাঁদের মধ্যেও নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা যাচ্ছে। প্রার্থীরাও প্রবীণদের পাশাপাশি নতুন ভোটারদের প্রাধান্য দিচ্ছেন, তাঁদের সাথে যোগাযোগ করছেন। এবছর প্রথম ভোট দিবেন এমন কয়েকজন নতুনের সাথে কথা বলে জানা যায়, নতুন এবং তরুণ প্রার্থীদের প্রতি তাঁদের যথেষ্ট আগ্রহ রয়েছে।

দলীয় মনোনয়ন পেতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়ে গেছে। ইউনিয়ন ছেয়ে যাচ্ছে প্রার্থীদের পোস্টারে ব্যানারে। সবকিছু মিলিয়ে, দলীয় মনোনয়ন ও প্রতীক প্রত্যাশীরা দলীয় সিদ্ধান্তের বাহিরে গিয়ে নির্বাচন করবেন না শুনা যায়। নির্বাচনে জয়ী হলে জনগনের কল্যাণে সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রাখবেন বলে দলীয়- অদলীয় সকলেই সকলেই প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

Facebook Comments
এ জাতীয় আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

স্বত্ব সংরক্ষিত © 2020 চুনারুঘাট
কারিগরি Chunarughat
Don`t copy text!