1. admin@chunarughat24.com : admin :
রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৬:১৮ অপরাহ্ন

সিলেটে সোমবার থেকে পরিবহন ধর্মঘট

সাজু করিম
  • সময় : বুধবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
  • ৯৭ বার পঠিত

সাজু করিম।। সিলেট মহানগরীর চৌহাট্টায় অবৈধ স্ট্যান্ড উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে পরিবহন শ্রমিক-সিসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে সংঘর্ষের সময় গাড়ি ভাঙচুরের প্রতিবাদে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন পরিবহন শ্রমিকরা।

আগামী সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) থেকে সিলেটে সকল ধরণের পরিবহণ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন পরিবহণ শ্রমিকরা।

আজ বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যা ৭ টায় সিলেট সংবাদমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিলেট জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুহিত।

আব্দুল মুহিত বলেন, আমরা দুয়েকদিনের মধ্যে প্রশাসনকে স্মারকলিপি দেবো। আর সোমবার সকাল ৬ টা থেকে পরিবহণ ধর্মঘট পালন করবো। সিলেটের সকল ধরণের পরিবহণ মালিক-শ্রমিকরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এর আগে দুপুরে চৌহাট্টায় স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করতে যান সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও সিসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

উচ্ছেদকালে মেয়রের সাথে ট্রাফিক পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।

শ্রমিকরা অবৈধ ভাবে দখল করে রাখা স্ট্যান্ড না ছাড়লে সিসিকের পক্ষ থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করলে লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালান পরিবহন শ্রমিকরা। শুরু হয় ইটপাটকেল নিক্ষেপ।

এসময় চৌহাট্টাসহ আশপাশের এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে আতঙ্কে দোকানপাট বন্ধ করে দেন ব্যবসায়ীরা।

তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ। এসময় পুলিশের সাথেও সংঘর্ষ লিপ্ত হয় শ্রমিকরা। প্রায় ঘন্টাখানেক পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

এসময় বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর হয়। ভাংচুর হওয়া এসব গাড়ি হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে শ্রমিকরা বিকেল আড়াইটার দিকে সিলেটের বিভিন্ন সড়কে বাস-মাইক্রোবাস রেখে রাস্তায় ব্যারিকেড সৃষ্টি করেন।

এরমধ্যে সিলেটের চণ্ডিপুল, হুমায়ূন রশীদ চত্বর, ইসলামপুর, মদিনা মার্কেটসহ বিভিন্ন এলাকায় অবরোধ করেন শ্রমিকরা।

পরে বেলা সাড়ে তিনটার দিকে দক্ষিণ সুরমা থানায় সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও পরিবহণ মালিক শ্রমিক নেতাদের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে নানা আলোচনা শেষে বিকেল ৪ টায় অবরোধ তুলে নেয়ার কথা জানানো হয়।

সিলেট জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুহিত অভিযোগ করে বলেন, আমাদের শ্রমিকদের মারধর করা হয়। গাড়ি ভাংচুর করা হয়েছে।

এছাড়াও, মেয়রের পদত্যাগ ও ট্রাফিক পুলিশের ডিসির অপসারণও দাবী করেন তিনি।

Facebook Comments
এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

স্বত্ব সংরক্ষিত © 2020 চুনারুঘাট
কারিগরি Chunarughat
Don`t copy text!