1. admin@chunarughat24.com : admin :
বায়ুদূষণেই কমছে আয়ু, মৃত্যুদণ্ড কেনো?
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৩:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
‘চীনের নিয়ন্ত্রণহীন রকেট নামিয়ে আনার পরিকল্পনা নেই যুক্তরাষ্ট্রের’ ২০ মে ‘চা শ্রমিক দিবস’ ঘোষণাসহ ১০ দফা দাবীতে স্মারকলিপি প্রদান শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ ভারী বৃষ্টিপাতে কুশিয়ারাসহ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের প্রধান সব নদীর পানি বৃদ্ধি পাবে সোহরাওয়ার্দি উদ্যানের গাছ কাটা বন্ধে আদালতের নোটিশ জাতীয় অধ্যাপক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন তিনজন বিশিষ্ট ব্যক্তি চুনারুঘাটে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই বন্ধু আহত সিলেট মেরিন একাডেমীর যাত্রা শুরু: উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী চুনারুঘাটে পুলিশের ওপর হামলা, আসামী ছিনতাই চিকিৎসার্থে খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে

বায়ুদূষণেই কমছে আয়ু, মৃত্যুদণ্ড কেনো?

শুহিনুর খাদেম
  • সময় : বুধবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২১
  • ৮২ বার পঠিত
বায়ুদূষণেই কমছে আয়ু, মৃত্যুদণ্ড কেনো?

শেষ পর্যন্ত ‘হাস্যকর’ প্রাণভিক্ষার আবেদন করেছিলো দিল্লী গণধর্ষণ কাণ্ডের অন্যতম আসামী অক্ষয় কুমার সিংহ।

দিল্লীর দূষণের সাথে তুলনা করেছিলেন মৃত্যুদণ্ডকে। তবে, বিশেষজ্ঞদের ধারণা ছিলো এটা আসামীর কালক্ষেপনের এক নতুন পদ্ধতি।

দিল্লীর বায়ুদূষণের মাত্রা এতোটাই বেশী, যে মানুষের আয়ু এমনিতেই কমে আসছে, তাহলে আর মৃত্যুদণ্ড কেনো? শুনতে অবিশ্বাস্য মনে হলেও এমনই ছিলো ওই আসামীর আবেদন।

ঘটনাটা ২০১৯ এর। নির্ভয়া কাণ্ডের চার আসামীর মৃত্যুদণ্ড ঘোষণা করেছিলো আদালত। মৃত্যুদণ্ডের বদলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আবেদন করেছিলো তিন আসামী। তাদের আবেদন নাকচ করে দিয়েছিলো আদালত। কিন্তু অক্ষয় কুমার সিংহ নামের আসামী প্রথমে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেননি।

অবশ্য শেষ মুহূর্তে পৌঁছে তার আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টের কাছে অক্ষয় কুমারের প্রাণভিক্ষার আবেদন জানান। যার বয়ানে বলা হয়, দিল্লীর বায়ুদূষণ এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে একে গ্যাস চেম্বার বলা যায়। এমনিতেই এখানে মানুষের আয়ু কমে আসছে। অক্ষয়ও দিল্লীর জেলে থাকলে বেশী দিন বাঁচবে না। তাহলে তাকে আর আলাদা করে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার অর্থ কি?

অক্ষয়ের প্রাণভিক্ষার এমন আবেদন পড়ে অবাক দেশের আইনমহল। অনেকেই বলছেন, এমন আবেদনের কথা কখনোই শোনেননি তারা।

শুধু তাই নয়, অক্ষয়ের প্রাণভিক্ষার আবেদনে ছিলো আরও আশ্চর্য সমস্ত কথা। সেখানে বলা হয়েছিলো, ভারতীয় পুরাণ অনুযায়ী সত্য যুগে মানুষ বাঁচতো হাজার বছর। ক্রমে তা কমতে কমতে কলিযুগে এসে পৌঁছেছি আমরা। মানুষের মৃত্যুর গড় বয়স এখন ৫০-৬০ বছর। সে কারণে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার কোনো অর্থ হয় না।

আবেদনে আরও বলা হয়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে মৃত্যুদণ্ড তুলে দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও, মৃত্যুদণ্ড থাকা উচিত কি না, তা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই বিতর্ক চলছিলো ভারতের আইন মহলে। অনেকেই সর্বোচ্চ শাস্তির বিপক্ষে।

আবার অনেকের মতে বিরলতম ঘটনার ক্ষেত্রে মৃত্যুদণ্ড থাকা উচিত। দিল্লী গণধর্ষণ কাণ্ডকে তেমনই এক বিরলতম ঘটনা বলে উল্লেখ করেছিলেন আদালত। যেভাবে নির্ভয়াকে গণধর্ষণ করা হয়েছিলো, তা নজীরবিহীন ও মনুষ্যতর।

এ ঘটনায় নিম্ন আদালত থেকে সর্বোচ্চ আদালত, সর্বত্রই মৃত্যুদণ্ডের আদেশ হয়েছিলো। নির্ভয়া কাণ্ড বদলে দিয়েছিলো ধর্ষণের আইনও।

তবে, দীর্ঘ ৭ বছরের আইনি জট পেরিয়ে ২০২০ সালের ২০ মার্চে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে চার আসামীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

নির্ভয়া কাণ্ডের ঘটনায় শাস্তি কার্যকর করা হলেও দিল্লীর বায়ুদূষণ শুধু ভারতের নয়, বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ অবস্থানে।

সুত্রঃ ডয়চে ভেলে।

Facebook Comments
এ জাতীয় আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

স্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2021 চুনারুঘাট
কারিগরি Chunarughat
Don`t copy text!