1. admin@chunarughat24.com : admin :
বিদেশে চিকিৎসা নিতে কিছুতেই রাজী হননি মাহাথির মোহাম্মদ
বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০৩:৪৭ পূর্বাহ্ন

বিদেশে চিকিৎসা নিতে কিছুতেই রাজী হননি মাহাথির মোহাম্মদ

আশরাফুল ইসলাম
  • সময় : রবিবার, ৯ মে, ২০২১
  • ১৩৩ বার পঠিত

১৯৮৯ সালের কথা। মালয়েশিয়ার অবস্থা মোটেই ভালো নয়। সামাজিক-রাজনৈতিক-অর্থনৈতিক কোনো ব্যবস্থাই উন্নত বা সমৃদ্ধ নয়।

১৯৮১ সাল রাষ্ট্র ক্ষমতায় মাহাথির মোহাম্মদ। তিনি দেশটির প্রধানমন্ত্রী এবং মাহাথির পেশায় একজন চিকিৎসক।

ক্ষমতায় থাকার আট বছর পর মাহাথির কিছুটা অসুস্থ বোধ করছিলেন, বুকে ব্যথা। ধরা পড়লো তাঁর হৃদযন্ত্রের সমস্যা। ব্লক আছে।

বাইপাস সার্জারি করতে হবে। এজন্য বিদেশে চিকিৎসা নিতে হবে।

তখনকার সময় মালয়েশিয়ার রাজনীতিবিদ আমলা ব্যবসায়ীরা চিকিৎসার জন্য লন্ডন, আমেরিকা কিংবা সিঙ্গাপুরে যেতেন।

তেমনি মাহাথিরের চিকিৎসার উদ্যোগ চলতে লাগলো। তাকে নেয়া হবে লন্ডনে।

কিন্তু মাহাথিরের প্রশ্নঃ কেন লন্ডন? কেন মালয়েশিয়া নয়?

তাঁকে বলা হলো, মালয়েশিয়ার চিকিৎসা ব্যবস্থা যেহেতু উন্নত বা নির্ভরযোগ্য নয়, তাই এ ধরনের অপারেশনের ঝুঁকি নেওয়া ঠিক হবে না।

মাহাথিরকে আরও বলা হলো, পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো ব্যবস্থায় চিকিৎসা করাতে হবে, তাতে ঝুঁকি কম থাকবে।

মাহাথির যুক্তি দেখালেন, আমার চিকিৎসা তো মালয়েশিয়ান চিকিৎসকরাই সবচেয়ে গুরুত্ব আর যত্নের সাথে করবেন। তাছাড়া আমাদের ঐতিহ্যও সূচনা করা দরকার।

আমরা বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করালে সাধারণ মালয়েশিয়ানরা তো যাবেই, দেশের ওপর আর ভরসা করবে না।

মাহাথির শেষ কথা বললেন, ‘আমার অপারেশন মালয়েশিয়াতেই হবে।’

কিন্তু পুরো প্রশাসন মাহাথিরের সাথে একমত নন। মাহাথিরও অনড়। এবং শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত হলো, মালয়েশিয়াতেই হবে তাঁর চিকিৎসা।

তারপরও সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি কুয়ান ইউ যোগাযোগ করলেন মাহাথিরের সাথে।

লি কুয়ান ইউ প্রস্তাব দিলেন, সিঙ্গাপুরের অভিজ্ঞ চিকিৎসকের সহায়তা নিতে। এমন প্রস্তাবেও রাজী হননি মাহাথির।

শেষ পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় একটি ইতিহাস রচিত হলো, মাহাথিরের অপারেশন মালয়েশিয়ান সার্জনদের হাতেই হলো, সফলভাবেই হলো।

এরপর মালয়েশিয়ার নতুন অগ্রযাত্রা শুরু। ইউরোপভিত্তিক এক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের গবেষণা অনুযায়ী, মালয়েশিয়া এখন চিকিৎসা সেবায় বিশ্বে প্রথম।

বাংলাদেশ তো বটেই, পৃথিবীর উন্নত দেশের নাগরিকেরা এখন মালয়েশিয়ায় চিকিৎসা নিয়ে থাকেন।

আর হয়তো এভাবেই মাহাথির মোহাম্মদ আধুনিক মালয়েশিয়ার জনক। তাঁর দল পরপর পাঁচবার সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করে।

এশিয়ার সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ।

২০০৩ সালে স্বেচ্ছায় প্রধানমন্ত্রীর পদ ছেড়ে দেন। মালয়েশিয়ার প্রয়োজনে আবার রাজনীতিতে ফিরেন।

২০১৮ সালে আবারো নির্বাচিত হয়ে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

তথ্যসুত্রঃ দূরবীন।

Facebook Comments
এ জাতীয় আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

স্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2021 চুনারুঘাট
কারিগরি Chunarughat
Don`t copy text!