1. admin@chunarughat24.com : admin :
হবিগঞ্জসহ সারাদেশে ঈদের পরই ইউপি নির্বাচন: থাকছে দলীয় প্রতীক
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ১০:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবীতে মানববন্ধন থেকে আল্টিমেটাম মঙ্গলে জীবনের অস্তিত্ব আছে কী? চুনারুঘাটে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার দাবীতে খোলা চিঠি চীনের সিনোফার্মের টিকা প্রয়োগের মাধ্যমে দ্বিতীয় পর্যায়ের টিকাদান শুরু সাইয়েদ ইব্রাহিম রায়িসি ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের ১৩তম প্রেসিডেন্ট ২২ জুন থেকে খুলনায় এবং ২০ জুন থকে বগুড়ায় এক সপ্তাহের লকডাউন জীবন বিপর্যয় রোধকল্পে সামাজিক নিরাপত্তা: কল্পনা ও নির্মম বাস্তবতা এবার করোনার রহস্যময় ‘বাংলাদেশ ভ্যারিয়েন্ট’! ঢাকা ব্যাংকের ভল্ট থেকে পৌনে ৪ কোটি টাকা উধাও, ২ কর্মকর্তা গ্রেফতার গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের বিমান হামলা

হবিগঞ্জসহ সারাদেশে ঈদের পরই ইউপি নির্বাচন: থাকছে দলীয় প্রতীক

হাবিবুর রহমান মাসুক
  • সময় : রবিবার, ৯ মে, ২০২১
  • ৩৮২ বার পঠিত
হবিগঞ্জসহ সারাদেশে ঈদের পরই ইউপি নির্বাচন: থাকছে দলীয় প্রতীক

স্থগিত ঘোষিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ঈদুল ফিতরের পর থেকে হবিগঞ্জসহ সারাদেশে কয়েক ধাপে শুরু হতে পারে।

খুব সম্ভবত ঈদের পরবর্তী দুই সপ্তাহের মধ্যে  ভোটের তারিখ নির্ধারণ করা হবে।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা যায়, ঈদের পর নির্বাচন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নিলেও তারিখ স্থির করেনি নির্বাচন কমিশন।

তবে, এ লক্ষ্যে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করাসহ প্রয়োজনীয় সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

প্রতিটি উপজেলার সদর ইউনিয়নে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) -এর ব্যবহারসহ দলীয় প্রতীকেই অনুষ্ঠিত হবে এবারের নির্বাচন। এমন আভাসই দিচ্ছে ইসি’র দায়িত্বশীল সূত্র।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, হবিগঞ্জের ৭৮টিসহ সারাদেশে রয়েছে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার ইউনিয়ন পরিষদ। ইতিমধ্যে মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে অধিকাংশ পরিষদের।

ভোটার তালিকা হালনাগাদ, মহামারি করোনা, আইনী জটিলতা ও পবিত্র রমজান মাসের কারনে নির্বাচন করা সম্ভব হয়নি।

সামনে বর্ষাকাল, তাই ঈদের পর থেকেই তড়িগড়ি করে শুরু হতে পারে ইউপি নির্বাচন।

এর আগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা বলেন, ঈদের পর মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে।

সূত্র আরও জানায়, গত ২১ মার্চ ৭শ ৫২, ৩০ মার্চ ৬শ ৮৪, ২২ এপ্রিল ৬শ ৮৫ ও ৬ মে ৭শ ৪৩টি ইউপির মেয়াদ শেষ হয়েছে।

২০১৬ সালের ৪ জুন সর্বশেষ ধাপে অনুষ্ঠিত হয় হবিগঞ্জ সদর, চুনারুঘাট ও বাহুবল উপজেলার সবকটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন।

এর পূর্বে কয়েকটি ধাপে সম্পন্ন হয় জেলার অন্যান্য ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন।

সেই হিসেবে ইতিমধ্যে জেলার অধিকাংশ ইউনিয়ন পরিষদের মেয়াদ শেষ হয়েছে। জুন মাসের মধ্যে হবিগঞ্জসহ দেশের অবশিষ্ট ইউপি’র মেয়াদও শেষ হবে।

সম্প্রতি প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা সংবাদ মাধ্যমকে জানান, পরিবর্তনের জন্য আইন পাস করার সুযোগ আপাতত নেই। তাই চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকেই ইউপি নির্বাচনের কথা ভাবছেন তারা।

এছাড়াও প্রতি উপজেলার সদর ইউনিয়নের সকল কেন্দ্রে ‘ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন’ (ইভিএম)-এর ব্যবহার নিয়ে সিদ্ধান্ত রয়েছে ইসির।

প্রসঙ্গত, স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইনে পরিষদের মেয়াদের বিষয়ে বলা হয়েছে, ‘কোন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যগণ সংশ্লিষ্ট পরিষদের প্রথম সভা অনুষ্ঠানের তারিখ হতে ৫ বছর সময়ের জন্য উক্ত পদে অধিষ্ঠিত থাকবেন।’

পরিষদের নির্বাচনের বিষয়ে বলা হয়েছে, ‘পাঁচ বছর পূর্ণ হওয়ার ১শ ৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

আইনে আরও উল্লেখ রয়েছে, ‘দৈব-দুর্বিপাকজনিত বা অন্য কোন কারণে নির্ধারিত পাঁচ বছর মেয়াদের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব না হলে, সরকার লিখিত আদেশ দ্বারা নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত কিংবা অনধিক ৯০ দিন পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট পরিষদকে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ক্ষমতা দিতে পারে।’

অনলাইন।

Facebook Comments
এ জাতীয় আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

স্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2021 চুনারুঘাট
কারিগরি Chunarughat
Don`t copy text!