1. admin@chunarughat24.com : admin :
হবিগঞ্জে নেই কোনো আইসিইউ
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৯:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবীতে মানববন্ধন থেকে আল্টিমেটাম মঙ্গলে জীবনের অস্তিত্ব আছে কী? চুনারুঘাটে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার দাবীতে খোলা চিঠি চীনের সিনোফার্মের টিকা প্রয়োগের মাধ্যমে দ্বিতীয় পর্যায়ের টিকাদান শুরু সাইয়েদ ইব্রাহিম রায়িসি ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের ১৩তম প্রেসিডেন্ট ২২ জুন থেকে খুলনায় এবং ২০ জুন থকে বগুড়ায় এক সপ্তাহের লকডাউন জীবন বিপর্যয় রোধকল্পে সামাজিক নিরাপত্তা: কল্পনা ও নির্মম বাস্তবতা এবার করোনার রহস্যময় ‘বাংলাদেশ ভ্যারিয়েন্ট’! ঢাকা ব্যাংকের ভল্ট থেকে পৌনে ৪ কোটি টাকা উধাও, ২ কর্মকর্তা গ্রেফতার গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের বিমান হামলা

হবিগঞ্জে নেই কোনো আইসিইউ

আহসানুল করিম
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ৩ জুন, ২০২১
  • ৬৫ বার পঠিত
হবিগঞ্জে নেই কোনো আইসিইউ

প্রতিদিনই বাড়ছে করোনার রোগী। কিন্তু হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা একেবারেই কম। প্রায় ২১ লাখ মানুষের হবিগঞ্জ জেলায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে নেই কোনো আইসিইউ।

এছাড়া জেলার সদর আধুনিক হাসপাতালে নেই পর্যাপ্ত অক্সিজেনের মজুদ। নেই লিকুইড অক্সিজেনের প্লান্ট। সিলিন্ডারের মাধ্যমে অক্সিজেন সরবরাহ করা হয়।

এ অবস্থায় ঝুঁকি নিয়েই সেবা নিচ্ছেন আক্রান্ত।

এদিকে ভারতে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় জেলার একমাত্র বাল্লা স্থলবন্দর বন্ধ করে দেওয়া হয়।

কিন্তু এ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে জেলার ১০ জন প্রবেশ করেছেন। তাঁরা ইতোমধ্যে কোয়ারেন্টাইন শেষে বাড়ি ফিরেছেন।

ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ মুখলেছুর রহমান উজ্জ্বল জানান, আধুনিক সদর হাসপাতালের নতুন ভবনের ষষ্ঠ তলায় করোনা রোগীদের জন্য ১০০টি শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এখানে সেন্ট্রাল অক্সিজেন আছে।

বড় সিলিন্ডারের মাধ্যমে এখানে অক্সিজেন সরবরাহ করা হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, কিন্তু লিকুইড অক্সিজেনের ব্যবস্থা আছে। যদি রোগী বেড়ে যায় তাহলে সমস্যা হবে।

তিনি বলেন, রোগী বাড়লে পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহ সম্ভব নাও হতে পারে।

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড সৈয়দ সায়েম উদ্দিন আহমেদ বলেন, এখানে (হবিগঞ্জে) মেডিকেল কলেজ রয়েছে। ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট আধুনিক হাসপাতাল রয়েছে। কিন্তু কোনো আইসিইউ নেই।

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, এমনকি নেই লিকুইড অক্সিজেনের ব্যবস্থা। এ জেলার ২১ লাখ মানুষকে এসব সুবিধা নেয়ার জন্য ছুটে যেতে হয় সিলেটে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, হবিগঞ্জ সদর ও শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা বাদে অন্য সাতটি উপজেলায় পাঁচটি করে মোট ৩৫টি শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

তবে আইসিইউ নেই জেলার কোনো হাসপাতালে। সবগুলোতেই সিলিন্ডারের মাধ্যমে অক্সিজেন দেওয়ার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

সেক্ষেত্রে যদি হঠাৎ সিলিন্ডার শেষ হয়ে যায় তবে তাৎক্ষনিক সিলিন্ডার রিফিল করে অক্সিজেন সরবরাহ করা অসম্ভব হয়ে যাবে।

জেলায় এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন দুই হাজার ৫০৪ জন। সুস্থ হয়েছেন ৭২ জন। আর মারা গেছেন ১৮ জন।

Facebook Comments
এ জাতীয় আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

স্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2021 চুনারুঘাট
কারিগরি Chunarughat
Don`t copy text!