1. admin@chunarughat24.com : admin :
আগামী তিন দিনে ভারী বর্ষণ ও অস্বাভাবিক বজ্রপাতের আশঙ্কা
শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৮:৪৭ অপরাহ্ন

আগামী তিন দিনে ভারী বর্ষণ ও অস্বাভাবিক বজ্রপাতের আশঙ্কা

চুনারুঘাট
  • সময় : সোমবার, ৭ জুন, ২০২১
  • ২৯ বার পঠিত
আগামী তিন দিনে ভারী বর্ষণ ও অস্বাভাবিক বজ্রপাতের আশঙ্কা

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ুর আগমনের কারণে আগামি ৩ দিনে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ আরো বাড়বে।

বৃষ্টির পরিমাণ বাড়ার সঙ্গে থাকবে অস্বাভাবিক বজ্রপাতও।

গতকাল দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে ১৭ জনের প্রাণহানির পর আজ সোমবার এই তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়া অফিস বলছে, বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু চট্টগ্রাম, বরিশাল, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগ পর্যন্ত অগ্রসর হয়েছে।

দেশের অবশিষ্ঠাংশে মৌসুমিবায়ু আরো অগ্রসর হওয়ার জন্য আবহাওয়া অনুকূলে রয়েছে।

মৌসুমি বায়ু চট্টগ্রাম, বরিশাল, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে এটি মাঝারি অবস্থায় বিরাজ করছে।

এই অবস্থায় আজ সকাল ৯টা পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, ময়মনসিংহ, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে ভারি বৃষ্টি হতে পারে।

এছাড়া টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, গোপালগঞ্জ, রাজশাহী, পাবনা, সিরাজগঞ্জ ও দিনাজপুর জেলাসহ খুলনা বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের যে তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে সেটি কিছু এলাকা থেকে প্রশমিত হতে পারে।

সারাদেশে দিনের ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

এর আগে গতকাল রোববার দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে ১৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

গতকাল চট্টগ্রাম, সিরাজগঞ্জ, ফেনী, টাঙ্গাইল, রংপুর ও মুন্সীগঞ্জে এইসব প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

এর মধ্যে রয়েছে চট্টগ্রামে ছয় জন, সিরাজগঞ্জে পাঁচ জন, টাঙ্গাইল ও ফেনীতে দুই জন করে এবং রংপুর ও মুন্সীগঞ্জে একজন করে।

এদিকে ফিনল্যান্ডের বজ্রপাতবিষয়ক গবেষণা সংস্থা ভাইসালার হিসাবে, বাংলাদেশে ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত প্রতিবছর ৪০ লাখ বা তার বেশিসংখ্যক বজ্রপাত মেঘ থেকে ভূমিতে নেমে আসে।

২০১৯ সালে তা প্রায় ১০ লাখ কমে যায়। সর্বশেষ গত বছর সংখ্যাটি দাঁড়িয়েছে ২৫ লাখের কিছু কম।

ভাইসালার হিসাবে, বজ্রপাতে গত বছর ১৪৪ জন মানুষের মৃত্যু হয়েছে, যা আগের দুই বছরের চেয়ে কিছুটা কম।

বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা ‘সেভ দ্য সোসাইটি অ্যান্ড থান্ডারস্টর্ম অ্যাওয়ারনেস ফোরাম’ বলছে, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে আবহাওয়ার ধরন পরিবর্তন, লম্বা গাছের সংখ্যা কমে যাওয়া, আকাশে কালো মেঘের পরিমাণ ও মেঘে মেঘে ঘর্ষণের সংখ্যা বেড়ে যাওয়া এবং বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণেই অস্বাভাবিক হারে বাড়ছে বজ্রপাত।

সংস্থাটি বলছে, তাপমাত্রা যতো বাড়বে বজ্রপাতও ততো বাড়বে।

Facebook Comments
এ জাতীয় আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

স্বত্ব সংরক্ষিত © 2020-2021 চুনারুঘাট
কারিগরি Chunarughat
Don`t copy text!